Bangladesh won 3rd ODI against south africa by 9 wickets and got the series 2-1

What an amazing excited match!!!unbelievable!It’s not india this time it’s south africa.After wining the second ODI they took a great victory against south africa cricket team by 9 wickets in the 3rd ODI without any trouble.The rain effective match played 40 overs both.South africa collected 168 runs in the first innings losing all wickets.Jp duminy 51,david miller 44.Shakib alhasan got 3 wickets.In the second innings bangladeshi two opening batsman showed great performance taking their partnership hundred over as a result they won the match 9 wickets and 83 balls remaining.Tamim iqbal’s 61 and soumya sarkar’s 90 run reached them to victory easily. It’s a great victory for them also a disappointed matter to south africa.They got the t20 series 2-0 but lost the ODI 2-1.Bangladeshi bowlers attacking bowling frustrated the top order batsman and  well fielding packet south africa innings in a low total.Great performance for the bangladesh team.It’s now final about their playing in champions trophy after winnning this series.

South Africa vs. Bangladesh 2nd ODI.Match score update news.

South Africa vs. Bangladesh 2nd one day international(day-night match) at Sher-e-Bangla mirpur cricket stadium,Dhaka,12 July 2015.                                                                                                                                                             Toss:South Africa won the toss and chose to bat first.                                                                                                              South Africa innings:Hashim Amla 22(37),De Kock 2(9),Du Plesis 41(64),Rossouw 4(24),David Miller 9(24),Duminy 13(21),Behardien 36(44),Chris Morris 12(13),Rabada 10(25),Abbot 5(11),Imarab Tahir 1(4)*,Extras 7(lb 4,w 3).Total:162 all out.46 overs.3.52 run per over.                                                         Bangladesh innings::Tamim Iqbal 5(7),Soumya Sarkar 88(79),Liton Das 17(14),Mahmudullah 5064),Shakib al Hasan 0(4)*,others did not bat,Extras7w 5,nb 2).Total:167-3,27.4 overs.6.03 runs per over.                                                                                                                                                                                              Result:Bangladesh won by 7 wickets.                                                                                                                                                                                            Man of the Match:Soumya Sarkar(bangladesh)                                                                                                                                               Series:Level by 1-1.

শংকায় বাংলাদেশ। তবে কি অনিশ্চিত চ্যাম্পিয়নস ট্রফি তে খেলাটা!!!!!!!

ভারত সিরিজের পর বাংলাদেশের চ্যাম্পিয়নস ট্রফি তে খেলা যখন একপ্রকার প্রায় নিশ্চিত তখন শোনা যাচ্ছে নতুন গুঞ্জন।আসছে আগস্ট মাসে ত্রি-পাক্ষিক সিরিজ খেলতে চায় জিম্বাবুয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও পাকিস্তান এর সংগে যারা র‍্যাংকিং এ মাত্র কয়েক পয়েন্ট এর ব্যাবধানে বাংলাদেশের নিচে অবস্থান করছে।সেক্ষেত্রে বাংলাদেশ এর জন্য সিরিজটা ঝুকির কারণ হয়ে দাড়াতে পারে।যদিও এই বিষয়ে এখনো কিছুই চূড়ান্ত হয় নি তবুও বাড়তি ঝুকিতে না গিয়ে সাউথ আফ্রিকার বিপক্ষে অন্তত একটা ম্যাচ জেতাই মঙ্গলজনক হবে মাশরাফিদের।

Cricket:বাংলাদেশের সামনে নতুন চ্যালেঞ্জ।আসছে সাউথ আফ্রিকা।

সম্প্রতি  ভারত বধের পর এখন আসছে আরেকটি নতুন চ্যালেঞ্জ।৫জুলাই থেকে শুরু হতে যাচ্ছে বাংলাদেশ-দক্ষিণ আফ্রিকা পূর্ণাংগ ক্রিকেট সিরিজ।তবে এ সিরিজ নিয়ে মানসিক ভাবে প্রস্তত বাংলাদেশ।র‍্যাংকিং এ ভারতের থেকে পিছিয়ে প্রোটিয়ারা।স্বাভাবিকত যেখানে র‍্যাংকিং এ ২ এ থাকা ভারত কে নাকানিচুবানি খাইয়ে দিল বাংলাদেশ সেখানে উপমহাদেশে খেলতে অনভ্যস্ত আফ্রিকান দের বিপক্ষে জয়ের আশা করতেই পারে বাংলাদেশ।তবে বাংলাদেশের অধিনায়ক মাশরাফি তেমন টা মনে করেন না।সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন যে ভারতের চেয়ে দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজ কঠিন হবে।ভারতের চেয়ে প্রোটিয়াসরা অনেক ভারসাম্যপূর্ণ দল।আমাদের সাম্প্রতিক পারফরমেন্স এর ওপর বিবেচনা করে তারা পুর্ণ শক্তির দলই নিয়ে আসবে।তাদের বিপক্ষে জিততে হলে আমাদের আরো ভাল খেলতে হবে।ভারতের ব্যাটিং শক্তশালি হলেও ভারতের চেয়ে তাদের বোলিং   অনেক উন্নত।আমাদের ব্যাটসম্যানদের লং ইনিংস খেলতে হবে এবং বড় স্কোর তুলতে হবে।                                                       উপমহাদেশে উইকেট কন্ডিশনে অনভ্যস্ত প্রোটিয়াসরা র‍্যাংকিং এ ভারতের পেছনে থাকলেও বেশ শক্তিশালী দল।তাদের পারফরমেন্স অত্যন্ত ধারাবাহিক।তবে একটু ভালো মানের স্পিন এ তারা খেই হারিয়ে ফেলে।তাই বাংলাদেশ তাদের সম্ভাব্য একাদশ অবশ্যই স্পিন নির্ভর করে সাজাবে।ব্যাটিং বোলিং ফিল্ডিং সব দিকেই তারা সুপারস্টার।তাদের ব্যাটিং প্রোতিরোধ ভাংতে ভালো মানের স্পিন এর কোনো বিকল্প নেই।                                                              আর সম্প্রতি সময়ে বাংলাদেশ ও অনেকটাই  ধারাবাহিকভাবে খেলছে।ক্যারিয়ার র‍্যাংকিং এ এগিয়ে এসেছেন বাম হাতি ব্যাটসম্যান সৌম্য সরকার।১৫ ধাপ এগিয়ে ৫১তে উঠে এসেছেন তিনি।তার রেটিং পয়েন্ট এখন ৫৩৯।আরেক হিটিং ব্যাটসম্যান সাব্বির রহমান ১৮ ধাপ এগিয়ে উঠে এসেছেন ৮৮ নম্বরে।এছাড়া ওয়ানডে ফরমেটে আবার শীর্ষস্থান দখল করেছেন তিন ফরমেটে বিশ্বসেরা সাকিব আল হাসান।২ ধাপ এগিয়ে আছেন ৩১ এ।তিন ধাপ এগিয়ে ৩৮ নম্বরে দা ফিনিশার নাসির।তাস্কিন এগিয়েছেন ৮ ধাপ।এসব কিছু থেকে র‍্যাংকিংয়ে পিছিয়ে হলেও সাউথ আফ্রিকা সিরিজ জেতার আশা করতেই পারে বাংলাদেশ!!!!!!!!

CRICKET:টানা জয়ের পর অবশেষে থামল বাংলাদেশ। সিরিজ জিতে নিল ২-১ এ।

সাম্প্রতিক সময়ে দুর্দান্ত  পারফরমেন্স করা বাংলাদেশ ঘরের মাটিতে টানা ১০ ম্যাচ জেতার পর অবশেষে থামল টাইগাররা।বুধবার সিরিজের শেষ ওয়ানডেতে ৭৭ রানে ভারতের কাছে হারের পর তাদের অবিরাম জয়ের রেকর্ড আপাতত  এই সিরিজে থেমে যায়।বিশ্বকাপের আগে জিম্বাবুয়ে কে ৫ ম্যাচ ও বিশ্বকাপের পরে পাকিস্তান কে ৩ ম্যাচ হোয়াইটওয়াশ করার পর ভারত সিরিজ এর প্রথম দুই ম্যাচ জিতে প্রথমবারের মত দেশের মাটিতে টানা ১০ ম্যাচ জেতার রেকর্ড অর্জন করে মাসরাফিরা।ভারতের বিপক্ষে ৩য় ম্যাচ এ টস জিতে ফিল্ডিং এর সিদ্ধান্ত নেয় বাংলাদেশ।১ম ইনিংসে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৬ উইকেট এ ৩১৭রান তোলে ইন্ডিয়া।জবাবে ৩১৮ রানের বিশাল লক্ষ্যে ব্যাটিং এ নেমে বিপর্যয়ে পড়ে স্বাগতিকরা।৪৭তম ওভারেই ২২৮ রান তুলে অল আউট যায় বাংলাদেশ। ফলাফল তিন ম্যাচ সিরিজের শেষ ম্যাচ এ জিতে মান বাচায় সফরকারীরা।এটাই ছিল ভারতের বিপক্ষে বাংলাদেশ এর ক্রিকেট ইতিহাসে প্রথম সিরিজ জয়।

3rd ODI: Bangladesh won the toss and chose to field

২৪ জুলাই বুধবার সিরিজের ৩য় ও শেষ ওয়ানডে তে টস জিতে ফিল্ডিং এর সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশি ক্যাপ্টেন মাশরাফি বিন মুর্তজা।সুবিধা জনক অবস্থানে থাকায় বাংলাদেশ কে বড় টার্গেট দিতে যাচ্ছে ধোনিবাহিনী।এ পর্যন্ত তাদের সংগ্রহ ২০৪/৩ উইকেট এর বিনিময়ে।ওভার ৩৭।মুস্তাফিয ১টি সাকিব ১টি ও মাশরাফি ১টি উইকেট নিয়েছে।কারেন্ট রান রেট ৫.৫১।ক্রিজ এ আছেন ধোনি ৪৭(৫৪),রাইউডু ২৫(৩৩).

South Africa vs. Bangladesh cricket series match fixture

চলতি মাসে ভারত কে ওয়াশের পর আগামি মাসে ১৫ বিশ্বকাপের সেমিফাইনালিস্ট দক্ষিণ আফ্রিকা আসছে বাংলাদেশে ২টি টি-টুয়েন্টি,৩টি ওয়ান্ডে ও ২টি টেস্ট খেলার জন্য।জুলাই মাস এর এই পূর্ণাঙ্গ সিরিজ এর ফিক্সচার এর সময়সূচী হলঃ                                                          ১ম টি টুয়েন্টিঃ ৫ জুলাই,২০১৫,ঢাকা।                                                                                                                                                ২য় টি টুয়েন্টিঃ ৭ জুলাই,২০১৫,ঢাকা।                                                                                                                                                    ১ম ওয়ানডেঃ ১০ জুলাই,২০১৫,ঢাকা।                                                                                                                                                ২য় ওয়ানডেঃ ১২ জুলাই,২০১৫,ঢাকা।                                                                                                                                                 ৩য় ওয়ানডেঃ ১৫ জুলাই,২০১৫,চিটাগাং।                                                                                                                                             ১ম টেস্টঃ ২১-২৫ জুলাই,২০১৫,চিটাগাং।                                                                                                                                           ২য় টেস্টঃ ৩০-৩ আগস্ট,২০১৫,ঢাকা।

Pakistan said the defeat against Bangladesh was just India’s dramatic match!!!!!!!!!

পাকিস্তানি সাবেক বোলার এক লাইভ শো তে বলেন যে ভারত নাকি ইচ্ছা করে হেরেছে বাংলাদেশের সাথে যাতে পাকিস্তান আসন্ন ১৭ সালের চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি তে অংশগ্রহন করতে না পারে।তাদের হারাটা নাকি নাটকীয় ছিল এমনটায় বলেছেন পাকিস্তানের এই সাবেক বোলার।এখন প্রশ্ন হচ্ছে ভারত কেন ইচ্ছাক্রিত ভাবে হেরে নিজের রেটিং পয়েন্ট  কমাবে যেখানে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি তে রেটিং পয়েন্ট অপরিহার্য।চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি এমন একটা টুর্নামেন্ট যেখানে আইসিসি র‍্যাঙ্কিং এর সেরা ৮টি দল অংশগ্রহনের সুযোগ পায়।আর পাকিস্তান যদি সম্প্রতি সময়ে এই ট্রফি খেলার যোগ্য হয় তাহলে কেনইবা বাংলাদেশের কাছে হোয়াইট ওয়াশ হল???……………আসল কথা হচ্ছে ক্রিকেট শক্তিমত্তার খেলা।এখানে টিম পারফরমেন্স এর মাধ্যমে  ম্যাচ জিততে হয়।কোনো টিম ই এখানে আরেক টিম কে ড্যামেজ করে নিজের রেটিং খারাপ করতে চায় না।আইসিসি তার নিজস্ব র‍্যাঙ্কিং এর মাধ্যমে প্রতিটা দলের পারফরমেন্স বিচার করে এবং সেই অনুযায়ী টুর্নামেন্ট আয়োজন করে।এ থেকে বোঝা যায় হোয়াইটওয়াস হউয়ার পর পাকিস্তান এর এমন ধরনের মন্তব্য তাদের অক্ষমতাই প্রকাশ করে।

BD Cricket team ranking turns up

২০১৫ বিশ্বকাপের পর বাংলাদেশ এর র‍্যাংকিং ছিল ৯ নম্বরে।সম্প্রতি পাকিস্তান কে ৩ ম্যাচ সিরিজ এ বাংলাওয়াশ করার পর এক ধাপ এগিয়ে তাদের রেটিং হয় ৮৮ পয়েন্ট এবং র‍্যাংকিং এ অবস্থান হয় ৮ নম্বরে।চলতি মাসে ভারতের সাথে ১ম ওয়ানডেতে জিতে তাদের রেটিং বেড়ে দাড়ায় ৯৩ পয়েন্ট যার ফলে সমান পয়েন্ট কিন্তু রান রেটে এগিয়ে থাকা ওয়েস্ট ইন্ডিজ কে পিছিয়ে দিয়ে র‍্যাংকিং এ বাংলাদেশ জায়গা করে নেয় ৭ নম্বরে।ভারতের বিপক্ষে ২য় ম্যাচে জিতে পয়েন্ট বেড়ে দাড়ায় ৯৬ এ যার ফলে ২০১৭ সালে চ্যাম্পিয়নস ট্রফি খেলার চান্স নিশ্চিত হয় বাংলাদেশের।এদিকে ইংল্যান্ড নিউজিল্যান্ড সিরিজ এ ইংল্যান্ড সিরিজ জিতে নেওয়ায় ইংল্যান্ড এর রেটিং বেড়ে হয় ১০৬ পয়েন্ট যার কারনে র‍্যাংকিং ৬ এ ওঠার সম্ভাবনা কমে গেল বাংলাদেশের।যদিও ৯৬ পয়েন্ট নিয়ে ৭ নম্বরে থেকে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি খেলা নিশ্চিত বাংলাদেশের সেক্ষেত্রে বাদ পড়তে পারে র‍্যাংকিং এ ৯ এ থাকা পাকিস্তান!!!

বাংলাদেশের তরুণ ক্রিকেটার মুস্তাফিজ এ মুগ্ধ ভারতের অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনি!!!!!

বাংলাদেশ বনাম ভারত সিরিজের ১ম ওয়ানডেতে অভিষিক্ত তরুন বোলার মুস্তাফিজ এ মুগ্ধ ধোনি। ২য় ওয়ানডে তে সিরিজ হারের পর সংবাদ সম্মেলনে এসে মুস্তাফিজ এর প্রশংসা করে বলেন,”ওর বলের গতি বোঝা যায় না।নরমাল যেই স্পিড এ বল করে স্লোয়ার বল গুলোতেও সেই একই স্পিড এবং বেশি টার্ন করে   যার কারনে বল গুলো স্লোয়ার হউয়া সত্বেও সোজা কিপিং এর হাতে চলে যায় যার কারনে ব্যাটসম্যান বিভ্রান্ত হয়।”                                                বিধ্বংসি এই লেফট আর্ম ফাস্ট বোলার অভিষেক ম্যাচ এ ৫ ও ২য় ওয়ানডেতে ৬ উইকেট নিয়ে দুটি ম্যাচেই ম্যান অব দ্যা ম্যাচ নির্বাচিত হয়।